mosquito bat

সবচেয়ে ভালো মশা মারার ব্যাট কোনটি

সবচেয়ে ভালো মশা মারার ব্যাট

বাংলাদেশের সব জায়গায় মশার উপদ্রপ বেশী।এই মশা বিভিন্ন রোগ ছড়ায়।কীটতত্ত্ববিদ এবং গবেষকেরা বলছেন, বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ১২৩ প্রজাতির মশার খোঁজ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ঢাকাতেই ১৪টি প্রজাতির মশা পাওয়া যায়।আর এসব মশা মারার জন্য প্রয়োজন সবচেয়ে ভালো মশা মারার ব্যাট ।বাংলাদেশে অনেক      প্রকারের মশা মারার ব্যাট দেখা যায়।এর মধ্যে সবচেয়ে ভালো মশা মারার ব্যাট কোনটি তা নিয়ে আলোচনা করা হলো।

 

R F L মশা মারার ব্যাট

আর এফ এল মশা মারার ব্যাট সবচেয়ে সেরা ব্যাট গুলোর মধ্যে একটি।এই ব্যাটের ব্যাটারী ও কাঠামো অনেক টেকসই ও মুজবুত।এ ব্যাট গুলো বিভিন্ন নামে পাওয়া যায় যেমন ক্লিক ,ভিগো,ভিশন ও ব্লেইজ নামে।

 

ছবিতে ক্লিক করে মূল্য ও বর্ণনা দেখুন

RFL vision mosquito killing bat

 

RFL CLICK MOSQUITO KILLING BAT

 

ওয়ালটন মশা মারার ব্যাট

বাংলাদেশের সবচেয়ে ভালো মশা মারার ব্যাট গুলোর মধ্যে ওয়ালটন মশা মারার ব্যাট অন্যতম।এই ব্যাটের ব্যাটারী অনেক টেকসই হয়ে থাকে।এর দৈহিক কাঠামো অনেক মুজবুত।

 

mosquito bat

 

সুপার মুন মশা মারার ব্যাট

বাংলাদেশের প্রচলিত ভালো মশা মারার ব্যাট গুলোর মধ্যে সুপার মুন মশা মারার ব্যাট অন্যতম।এই ব্যাটের ব্যাটারী অনেক টেকসই হয়ে থাকে।

 

mosquito bat

 

ওয়েডাসি মশা মারার ব্যাট

বাংলাদেশের ব্যবহিত ভালো মশা মারার ব্যাট গুলোর মধ্যে ওয়েডাসি মশা মারার ব্যাট অন্যতম।এই ব্যাটের ব্যাটারী অনেক টেকসই ও কাঠামো মুজবুত হয়ে থাকে।

 

mosquito bat

 

 মশাবাহিত  ৫টি রোগের নাম জানা যায়

 

ম্যালেরিয়া

বাংলাদেশে মোট ৩৬ প্রজাতির অ্যানোফিলিস মশা দেখা যায়, এদের মধ্যে সাতটি প্রজাতি আমাদের দেশে ম্যালেরিয়া রোগ ছড়ায়।এ রোগ থেকে বেচেঁ থাকার জন্য মশা নিধন দরকার।আর এ মশা নিধনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম বা উপায় হচ্ছে ইলেট্রিক ব্যাট।

 

ফাইলেরিয়া

কিউলেক্স মশার ২টি প্রজাতি এবং ম্যানসোনিয়া মশার একটি প্রজাতির মাধ্যমে বাংলাদেশে ফাইলেরিয়া রোগ ছডায়।এই রোগে মানুষের হাত-পা ও অন্যান্য অঙ্গ পতঙ্গ অস্বাভাবিকভাবে ফুলে ওঠে। একে স্থানীয়ভাবে গোদ রোগও বলা হয়ে থাকে।এসব মশা নিধনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম বা উপায় হচ্ছে ইলেট্রিক ব্যাট।

 

ডেঙ্গু

এডিস মশার ২টি প্রজাতি- এডিস ইজিপ্টি এবং অ্যালবোপিকটাস, মূলত ডেঙ্গু ভাইরাসের জীবাণু ছড়ায়।এডিস মশা পাত্রে জমা পরিষ্কার পানিতে জন্মায়। সাধারণত বর্ষাকালে এর ঘনত্ব বেশি হয়।ডেঙ্গু জ্বরে সাধারণত তীব্র জ্বর ও সেই সঙ্গে সারা শরীরে অনেক ব্যথা হয়ে থাকে।এসব মশা থেকে বেচেঁ থাকার জন্য বাড়ির আসেপাশে পরিষ্কার রাখতে হবে এবং ইলেট্রিক ব্যাটের মাধ্যমে নিধন করতে হবে।

চিকুনগুনিয়া

চিকুনগুনিয়া রোগও এডিস মশার মাধ্যমে ছড়ায়।এ রোগে মাথা ব্যথা, বমি ভাব, দুর্বলতা, সর্দি-কাশি, এবং র‌্যাশের সঙ্গে শরীরে হাড়ের জয়েন্ট বা সংযোগস্থলে তীব্র ব্যথা হয়।ইলেট্রিক ব্যাটের মাধ্যমে এসব ক্ষতিকর মশা নিধন করতে হবে।

এনসেফালাইটিস

জাপানিজ এনসেফালাইটিস রোগটি কিউলেক্স মশার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।এ রোগেও বিভিন্ন সমস্যা হয়ে থাকে।এসব  ক্ষতিকর মশা থেকে বেচেঁ থাকতে হলে ইলেট্রিক ব্যাটের ব্যবহার প্রয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *